মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১১:১১ অপরাহ্ন

সিআইইউতে করপোরেট টক অনুষ্ঠিত

সিআইইউতে করপোরেট টক অনুষ্ঠিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : শিক্ষার্থীদের সৎ থাকার পরামর্শ দিয়ে দেশের শীর্ষস্থানীয় উদ্যোক্তা, পেডরোলো এনকে লিমিটেড-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিআইইউ ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য মো. নাদের খান বলেছেন, জীবনটাকে সৎভাবে চালান। সৎ থাকলে ইজ্জত এবং জীবিকার অভাব হবে না। তিনি সম্প্রতি নগরের জামালখানস্থ চিটাগং ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির (সিআইইউ) মিলনায়তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় অনুষদ আয়োজিত ‘করপোরেট টক’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে মূল বক্তা হিসেবে এসব কথা বলেন। সিআইইউর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহফুজুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য দেন সিআইইউর ব্যবসায় অনুষদের অধ্যাপক ড. নুরুল আবসার নাহিদ। এতে মূল বক্তার বায়োগ্রাফি পাঠ করেন সিআইইউ ব্যবসায় অনুষদের ডিন ড. মো. নাঈম আব্দুল্লাহ।

অনুষ্ঠানের মূল বক্তা পেডরোলো এনকে লিমিটেড-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাদের খান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আরোও বলেন, এখন গোটা বিশ্বই আমাদের দেশ। পুরা বিশ্বই এখন তোমার। শুধু নিজেকে নিয়ে পড়ে থাকলে চলবে না। এই বিশ্বায়নের যুগে গোটা পৃথিবীর প্রেক্ষাপট মাথায় রাখতে হবে। পৃথিবীর প্রতিটি মানুষই স্বতন্ত্র, কারোও সাথে কারোও মিল নেই। মানুষ অসাধ্যকে সাধন করতে পারে। নিজের জীবনের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, আমি একেবারে শূন্য থেকে শুরু করেছি। আমার জম্ম ১৯৪৪ সালে ফটিকছড়ির দৌলতপুর গ্রামে। বাবা রেঙ্গুনে ব্যবসায় করতেন। সে সময় একবার রেঙ্গুন যাওয়ার সুযোগ হয়েছিল এবং সেখান দশ মাস থাকি। এই দশ মাস সময় আমি কোন পড়াশুনা করিনি, কেবল ঘুরেছি, বেড়িয়েছি। এই দশ মাসে আমি অনেক কিছু শিখেছি। এই দশ মাস ছিল আমার ব্যবহারিক জ্ঞান অর্জনের সময়। পরবর্তীতে আমি বিশ্ব ভ্রমণে বের হই, যেটা আমার জীবন ও ব্যবহারকে পরিবর্তন করে দেয়। বিশ্ব ভ্রমণ করে এসে বুঝেছি, শুধু আমিই কেন, তৎকালীন বাংলাদেশেও বিশ্ব থেকে তখন অনেক দূরে।

ইতালিয়ান কোম্পানি পেডরোলোর সাথে ব্যবসায় শুরুর প্রেক্ষাপট সম্বন্ধে তিনি বলেন, ১৯৮৫ সালে ইতালির একটি মেলাতে অংশগ্রহণ করতে যাই। সেই মেলায় একটি ওয়াটার পাম্পের স্টলও ছিল। কৌতুহল বশত: স্টলটিতে যাই এবং ১২০টি পাম্পের অর্ডার করি। সেই থেকে শুরু। পেডরোলোর গুণগত মানের জন্য ধীরে ধীরে অর্ডারের ব্যাপ্তি বাড়তে থাকে এবং শুধু ২০০২ সালেই ৯৮ হাজারটি পাম্প বিক্রয় করতে সমর্থ হই। পেডরোলো একটি ইতালিয়ান কোম্পানি, যারা বিশ্বব্যাপী দৈনিক গড়ে ১২ হাজার পাম্প বিক্রয় করে। পেডরোলোর এই বড় হওয়ার পেছনে বাংলাদেশের একটি বড় অবদান আছে, যা তারা স্বীকার করে।

ব্যবসার মাধ্যমে কেবল অর্থই উপার্জন হয় না, এটির মাধ্যমে দেশের জন্যও অবদান রাখা যায় উল্লেখ করে তিনি আরোও বলেন, একজন ব্যবসায়ী দেশকে সাহায্য করতে পারে, দেশের জন্য অবদান রাখতে পারে। তিনি ব্যবসায় করার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের সৎ থাকার তাগিদ দেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি সিআইইউর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী বলেন, আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কেইস স্টাডি মেথডের উপর জোর দেয়। যেখানে ক্লাশে নতুন নতুন কেইস উপস্থাপন করা হয় এবং শিক্ষার্থীরা সেগুলো সমাধান করে। আগামিতে সিআইইউর ‘করপোরেট টক’ অনুষ্ঠানগুলোও একই পদ্ধতিতে পরিচালিত হবে বলে তিনি বক্তব্যে উল্লেখ করেন। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, প্রতিদিনই একটি অভিজ্ঞতা, এখান থেকে তোমাকে শিখতে হবে। তোমার পিতা-মাতা বা অন্যের কি আছে তা ভুলে যাও, নিজের পায়ে নিজে দাড়ানোর চেষ্টা কর।

অনুষ্ঠানে একটি উম্মুক্ত প্রশ্নোত্তর পর্বও রাখা হয়, যেখানে মূল বক্তা নাদের খান শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন। বিবিএ’র শিক্ষার্থী ব্রেন্ট রিচার্ডসনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সিআইইউর ব্যবসায় অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষিকা, বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা ও ব্যবসায় অনুষদের শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন।


নিউজটি অন্যকে শেয়ার করুন...

আর্কাইভ

business add here
© VarsityNews24.Com
Developed by TipuIT.Com