বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১:১৬ অপরাহ্ন

এনবিআইইউতে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

এনবিআইইউতে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

এনবিআইইউ প্রতিনিধি : ‘মোদের গরব, মোদের আশা, আ-মরি বাংলাভাষা’’ প্রতিপাদ্যে নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশাল ইউনিভার্সিটিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসের শুরুতে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় রাজশাহী নগরীর আলুপট্টিস্থ নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির একাডেমিক ভবনে জাতীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন করেন ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারপারসন অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক ও উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেকসহ শিক্ষক, কর্মকতা-কর্মচারীবৃন্দ। পরে সকাল সাড়ে ৯টায় সেখান থেকে প্রভাত ফেরী র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি নগরী প্রদক্ষিণ শেষে রাজশাহী কলেজের শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। পরে সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স রুমে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারপারসন বরেণ্য কথাসাহিত্যিক অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক। এসময় তিনি বলেন-প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির মাপ-জোকে আসে বার বার একুশ। দেশের প্রথম শহীদ মিনার রাজশাহী কলেজেই হয়েছিলো কিন্তু সরকারি স্বীকৃতি এখনো পায় নি। দাবি প্রতিষ্ঠায় রাজশাহীবাসীর দূর্বার আন্দোলন দরকার। ঘরে ঘরে বাংলা ভাষা শুদ্ধভাবে চর্চার আহবান জানান তিনি। দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতি উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেক বলেন, ‘জাতিসত্বত্তার অন্বেষায় একুশ। সংস্কৃত ভাষা রক্ষণশীলতার জন্য হারাতে বসেছে। অথচ বাংলাভাষা সংস্কৃত ভাষা থেকেই এসেছে। বাংলার ভাষার প্রচন্ড শক্তি থাকায় অন্যভাষাকে সহজেই আপন করে নিতে পারে। গ্রহণ করতে পারে। যে কারণে বাংলাভাষা টিকে থাকবে চিরকাল। কথা-বার্তা, বাক্য গঠন ইত্যাদিতে আমাদের যতœবান হওয়া দরকার। বাংলা ভাষা অচিরে সর্বত্রই দাফতরিক ভাষা হিসেবে চালু করা প্রয়োজন। তিনি মহান ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা ড. মো. হাবিবুল্লাহ এর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহম্মদ আবদুল জলিল, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন  প্রফেসর ড. এম. ওয়াজেদ আলী। বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার রিয়াজ মোহাম্মদ, রাবির সাবেক উপ-উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ নূরুল্লাহ, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজম শান্তনু, এনবিআইইউ প্রফেসর আব্দুর রউফ,  প্রক্টর ড.আজিবার রহমান, সহকারি প্রক্টর আবদুল কুদ্দুস, ড. নাসরিন লুবনা, মাহফুজা বেগম, আসাদুজ্জামান, হামিদুর রহমান, সাজু সরকার প্রমুখ। উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানে বাংলা বিভাগের প্রভাষক হামিদুর রহমান রচিত ‘মুক্তিযুদ্ধের কিশোর ইতিহাস: নাটোর জেলা’ শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকতা-কর্মচারীবৃন্দ।


Share this post in your social media

© VarsityNews24.Com
Developed by TipuIT.Com